গল্পেরঝুড়ির এ্যাপ ডাউনলোড করুন - get google app
গল্পেরঝুড়ি ফানবক্স ! এখন গল্পের সাথেও মজাও হবে! কুইজ খেলুন , অংক কষুন , বাড়িয়ে নিন আপনার দক্ষতা জিতে নিন রেওয়ার্ড !

গল্পেরঝুড়িতে লেখকদের জন্য ওয়েলকাম !! যারা সত্যকারের লেখক তারা আপনাদের নিজেদের নিজস্ব গল্প সাবমিট করুন... জিজেতে যারা নিজেদের লেখা গল্প সাবমিট করবেন তাদের গল্পেরঝুড়ির রাইটার পদবী দেওয়া হবে... এজন্য সম্পুর্ন নিজের লেখা অন্তত পাচটি গল্প সাবমিট করতে হবে... এবং গল্পে পর্যাপ্ত কন্টেন্ট থাকতে হবে ...

সুপ্রিয় গল্পেরঝুরিয়ান... জিজেতে আজে বাজে কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন ... অন্যথায় আপনার আইডি বা কমেন্ট ব্লক করা হবে... আর গল্প দেওয়ার ক্ষেত্রে গল্প দেওয়ার নিয়ম মেনে চলুন ... সার্বিকভাবে জিজের নীতিমালা মেনে চলার চেস্টা করুন ...

দ্যা ফিফটি(৪)

"শিক্ষা উপকরন" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান TAMIM (০ পয়েন্ট)



রাইটারঃতামিম আজ আমি একটু বিশ্বেেের ৫০ জন শ্রেষঠ মনীষীর মধ্যে ৫০ তম মনীষীর জীবনের যতটুকু লেখা যায় ততটুকু লেখার চেষ্টা থাকবে ইনশাআল্লাহ । ------------------------------------------ মাওলানা জালালউদ্দিন রুমী (রহ.) যাকে মহামনীষী বলা হয়।তিনি ৬০৪ হিজরী ৬ই রবিউল আউয়াল মোতাবেক ১২০৭ খ্রিষটাবদের ২৯ শে সেপ্টেম্বর আফগানিস্তান এর বলখ নগরে জন্ম গ্রহন করেন। তার পিতার নাম বাহাউদ্দীন ওয়ালিদ।তার পিতা ছিলেন তৎকালীন সনামধন্য কবি ও দরবেশ।এবং এই কারনে বাহাউদ্দীনকে কুনিয়ার শাসনকর্তা তাকে আমন্ত্রণ করেন।পরে তিনি সপরিবারে সেখানে বসবাস করা শুরু করেন। মাত্র ৫ বছর বয়সেই এই মহামনীষীর বিভিন্ন অলৌকিক প্রতিভা ফুটে ওঠে।বাল্যকালে তিনি অন্যান্য ছেলে- মেয়ের মত খেলাধুলা পছন্দ করতেন না।তিনি কখনোই আমোদফুর্তি পছন্দ করতেন না।তিনি সবসময়ই ধর্মীয় বিষয়গুলো বেশি পছন্দ করতেন।মাত্র ৬ বছর থেকেই তিনি রোযা রাখতেন।এবং ৭ বছর থেকেই সমুধর কন্ঠেে আল-কুরআন তিলওয়াত করতেন কুরআন তিলাওয়াত এর সময় তার দু চোখ অশ্রু দারা ভরা থাকত। তিনি একবার ভ্রমনে র সময় তৎকালীন বিখ্যাত কবি শেখ ফরিদ এর সাথে সাক্ষাৎ করেন যে তার মুখ দেখেই তার উজ্জ্বল ভবিষ্যতের কথা বলে দিয়েছিলেন।তিনি উচ্চ শিক্ষা লাভের জন্য প্রথমে সিরিয়া তারপর দামেস্ক গিয়েছিলেন।এছাড়া জ্ঞানের সন্ধানে তিনি ৪০ বছর বিভিন্ন দেশে ঘুরেছেন।তৎকালীন সময়ে তিনি এতই জ্ঞানী ছিলেন তার সাথে অন্য কাউকে তুলনা করত না কেউ(১ আল্লাহ ছাড়া)।তার গ্রনথবলীর মধ্যেে মসনবী ও দিওয়ান তাকে অমর করে রেখেছে।তিনি তার শিষ্যদের যে উপদেশ দিতেন তা হলোঃ "ইন্দ্রিিিয় লালসাকে কখনো প্রশয় দিবে না।পাপকে পরিহার করবে।নামাজ ও রোযা কখনো কাযা করবে না।অন্তরে ও বাহিরে আল্লাহ কে ভয় করবে।বিপদে ধৈর্য ধারন করবে কাউকে কষ্ট দেবে না ।মন রাখবে মানুষের মধ্যে তিনিই শ্রেষঠ যার জন্য তার দেশওজাতির কল্যান সাধিত হয়।" এই বিখ্যাত মনীষী মৃত্যুবরন করেন ১২৭৩ খ্রিষটাবদের ১৬ ই ডিসেম্বর। ------------------------------------------ আজ এ পর্যনতই "চলবে" "আল্লাহ হাফেজ"


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ২৩৪ জন


এ জাতীয় গল্প

→ দ্যা টেমপেস্ট
→ রকেটবিদ্যা
→ বিদ্যানন্দ ফাউন্ডেশনঃ মুসলমানের টাকা হজম
→ প্রত্যুপকার-ঈশ্বরচন্দ্র বিদ্যাসাগর
→ দ্যা ভেম্প্যায়ার
→ অ্যাটাক অফ দ্যা ডেড ম্যান
→ দ্যা ফিফটি(৬)
→ দ্যা ব্লাক বুক(৩য় পর্ব)
→ দ্যা ব্লাক বুক(২ পর্ব)
→ দ্যা ব্লাক বুক

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...