গল্পেরঝুড়ির এ্যাপ ডাউনলোড করুন - get google app
গল্পেরঝুড়ি ফানবক্স ! এখন গল্পের সাথেও মজাও হবে! কুইজ খেলুন , অংক কষুন , বাড়িয়ে নিন আপনার দক্ষতা জিতে নিন রেওয়ার্ড !

যাদের গল্পের ঝুরিতে লগিন করতে সমস্যা হচ্ছে তারা মেগাবাইট দিয়ে তারপর লগিন করুন.. ফ্রিবেসিক থেকে এই সমস্যা করছে.. ফ্রিবেসিক এ্যাপ দিয়ে এবং মেগাবাইট দিয়ে একবার লগিন করলে পরবর্তিতে মেগাবাইট ছাড়াও ব্যাবহার করতে পারবেন.. তাই প্রথমে মেগাবাইট দিয়ে আগে লগিন করে নিন..

সুপ্রিয় গল্পেরঝুরিয়ান... জিজেতে আজে বাজে কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন ... অন্যথায় আপনার আইডি বা কমেন্ট ব্লক করা হবে... আর গল্প দেওয়ার ক্ষেত্রে গল্প দেওয়ার নিয়ম মেনে চলুন ... সার্বিকভাবে জিজের নীতিমালা মেনে চলার চেস্টা করুন ...

গল্প:- মন্ত্রীর ছেলে

"রোমাঞ্চকর গল্প " বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান AL:AMIN AYON(guest) (৩৮৫৫৮ পয়েন্ট)



গল্প:- মন্ত্রীর ছেলে ,, পর্ব -1 , কলেজে ঢুকবো এমন সময় পিছন থেকে মিম ডাক দিল। মিম:এই তোমাকে না বলেছি কলেজে না আসতে, আমি:জি,কলেজটা আপনার বাবার না। মিম:তোমার সাহস তো মন্দ না? আমি:এখানে সাহসের কি হলো? মিম:তুমি জানো আমি কে? আমি:না,আর জানার চেষ্টাও করি না। মিম:কি এত বরো কথা, আজি তোমাকে এই কলেজ থেকে বের করব!দারাও আমি:হা হা হা!!জান জান মিমঃ রাগে ফুসতে ফুসতে প্রিন্সিপালের রুমের দিকে গেল। ওহ!আমার পরিচয়টাই তো দেওয়া হই নাই।আমি আহাদ আর ও মিম।ভার্সিটির প্রথম থেকেই আমার সাথে এরকম করে কিন্তু বেশি কিছু করে না।ওর বাবা পুলিশ কমিশনার আর ও একটু বেশি শুন্দর তাই অহংকার আর ভাব একটু বেশি।মীম অনেক প্রপোস পেয়েছে কিন্তু acpt করে না।কেউ বেশি distrub করলে নাকি ওর বাবাকে দিয়ে শাহেস্তা করে। আমি দেখতে স্মার্ট কিন্তু থাকি খেত হয়ে।এই কারনে ও আমাকে দেখতে পারে না।এরই মধ্যে পিওন এসে বলে গেল প্রিন্সিপাল আমাকে ডেকেছেন। তাই উনার রুমের দিকে গেলাম: আমি:may I come in,sir? প্রিন্সিপাল:ys,come in. আমি:স্যার,আমাকে নাকি ডেকেছিলেন? প্রিন্সিপাল:হুম আমি:কিসের জন্য? প্রিন্সিপাল:তুমি নাকি মিম কে distrub করো? আমি:জি না,তিনিই আমার সাথে আগে কথা বলতে আসেন প্রিন্সিপাল:ওকে,nxt যদি শুনি তুমি মিমকে distrub করেছো তাহলে তোমাকে t.c দিয়ে বের করে দিব আমি:ঠিক আছে sir প্রিন্সিপাল:এখন তুমি আসতে পার আমি:ওকে sir চলে আসলাম।আমার সাথে মিমও বের হলো বাহিরে এসে: মিম:,কেমন দিলাম? আমি:ভালো মিম:এরপর থেকে জেন আমার সামনে না দেখি আমি:চেস্টা করবো চলে আসলাম বারিতে।ফ্রেশ হয়ে খাবার খেতে গেলাম।তখন: বাবা:আমার গুনধর ছেলে,আর কত দিন এইভাবে চলবে? আমি:কি কত দিন চলবে? বাবা:এই খেত হয়ে থাকা বাবা:তুমি তো জানও আমার এরকম থাকতেই ভাল লাগে বাবা:তা তো জানি।কিন্তু সবাই কি বলে জানিস? আমার নাকি টাকা নাই ভাইয়া:হুম।ওকে একদম বাজে দেখা জায় আম্মু:ওটাই ভাল।কোন মেয় নজর দিবে না আমার ছেলের দিকে ভাবি:আম্মা,এখনকার ছেলেরা এরকম হয় নাকি,যে রকম আমার দেবর আমি:তোমরা কি শুরু করলে?১ মাস পর থেকে সব চেইঞ্জ করে ফেলব খাবার খেয়ে রুমে চলে আসলাম।আপনাদের হুম আমার পরিবার সম্পকে কিছু বলা হয় নাই। আমার পরিবারে মা-বাবা,ভাইয়া,ভাবি,ভাতিজা আর আমি।বাকিটা পরে জানতে পারবেন। তারপরের দিন কলেজে গেলাম।গেট দিয়ে ঢুকতে জাবো তখনি খেলাম ধাক্কা।তাকিয়ে দেখলাম মিম। তারপর:: আমি:সরি।আমি দেখিনি। মিম:তোর সাহস অনেক বেরে গেছে না? দারা তোকে আজ মজা দেখাব।(এই বলে ওর বাবাকে ফোন দিল)বাবা,একটা ছেলে আমাকে distrub করে,তুমি কলেজে অসো। ওকে আসছি মা :........ মিম:আচ্ছা,তারাতারি আসো। কিছুক্ষন পর মিমের বাবা আসলো।এসেই আমাকে একটা চর দিলো।তারপর: মিমের বাবা:এই ছেলে,তোর সাহস হলো কিকরে আমার মেয়কে distrub করার? আমি:আমি দুঃখিত খেয়াল করিনী sir। মিম:না বাবা,ওকে জেলে পুরে দাও আমাকে রোজ distrub করে। আমি:এবার কিন্তু বেশি হয়ে জাচ্ছে। মিম:কি বেশি হচ্ছে,হা? মিমের বাবা:আচ্ছা,এবারের মত কিছু বললাম না,nxt time কোন অভিজোগ আসলে জেলে পুরে দিব। আমি:ওকে sir চলে আসলাম সেখান থেকে।বাড়ি এসে ভাইয়ার রুমে গেলাম।তারপর: আমি:ভাইয়া ভাইয়া:হুম,বল আমি:কাল থেকে আমি গারি আর গার্ড নিয়া কলেজে জাবো ভাইয়া:ঠিক আছে।কিন্তু হঠাত এত পরিবর্তন।কাহিনি কি? ভাবি:দেখো কোন মেয়ের প্রেমে পরছে হয়তো আমি:আরে সেরকম কিছু না।(সব খুলে বললাম) ভাবি:আচ্ছা,সত্যি একটা কথা বলবা? আমি:আমি কি মিথ্যা কথা বলি? ভাবি:না তা না।বলছিলাম কি,তুমি কি মেয়টাকে ভালোবাস নাকি? আমি:সত্যি বলতে কি,হ্যাঁ বাসি ভাইয়া:তাহলে প্রপোজ কর আমি:আগে ওরে একটু টাইট দিয়া নেই তারপর বিয়ে করব। ভাবি:তারাতারি করে ফেলো আমি:হুম পিছন দিয়ে আব্বু-আম্মু এসে: আব্বু-আম্মু:ও এই বেপার।তা আমাদের বললে কি হতো শুনি? আমি:তোমরা? আম্মু:হ্যাঁ আমরা তা বউমাকে কবে আনবি? আমি:খুব তারাতারি আব্বু:best of luck আমি:tnx তারপর রুমে এসে শুয়ে পরলাম।সকালে শুন্দর করে রেডি হয়ে দুটো গারি নিয়ে বের হলাম। একটাতে আমি আর আরেকটাতে গার্ড। কলেজের কেম্পাসে গাড়ি পার্ক করে নামার সাথে সাথে সবাই হ্যাঁ করে তাকিয়ে আছে।সবাই হয়ত ভাবছে খেত টাইপের পুলা আবার এরকম stylish আর গাড়ি পেল কোই? একটু পর দেখি মিমও আমার দিকে হ্যাঁ কইরা তাকিয়ে আছে। ওর সামনে দিয়া জাওয়ার সময় আমার সাথে কথা বলতে চেয়েছে কিন্তু আমার গার্ড ওকে আসতে দেয়নি। আমি যা যা বলি তারা তাই করে, একটু ভাব নিলাম আর কি… ক্লাশে চলে গেলাম।সবার নজর আমার দিকে।মিম ক্লাশে ঢুকেই আমার সামনে এলো। তারপর: চলবে…⬇⬇ _বিঃদ্রঃ- এই পোষ্টটি কেমন লেগেছে ? কমেন্ট করতে ভুলবেন না। ,, পর্ব -1 , কলেজে ঢুকবো এমন সময় পিছন থেকে মিম ডাক দিল। মিম:এই তোমাকে না বলেছি কলেজে না আসতে, আমি:জি,কলেজটা আপনার বাবার না। মিম:তোমার সাহস তো মন্দ না? আমি:এখানে সাহসের কি হলো? মিম:তুমি জানো আমি কে? আমি:না,আর জানার চেষ্টাও করি না। মিম:কি এত বরো কথা, আজি তোমাকে এই কলেজ থেকে বের করব!দারাও আমি:হা হা হা!!জান জান মিমঃ রাগে ফুসতে ফুসতে প্রিন্সিপালের রুমের দিকে গেল। ওহ!আমার পরিচয়টাই তো দেওয়া হই নাই।আমি আহাদ আর ও মিম।ভার্সিটির প্রথম থেকেই আমার সাথে এরকম করে কিন্তু বেশি কিছু করে না।ওর বাবা পুলিশ কমিশনার আর ও একটু বেশি শুন্দর তাই অহংকার আর ভাব একটু বেশি।মীম অনেক প্রপোস পেয়েছে কিন্তু acpt করে না।কেউ বেশি distrub করলে নাকি ওর বাবাকে দিয়ে শাহেস্তা করে। আমি দেখতে স্মার্ট কিন্তু থাকি খেত হয়ে।এই কারনে ও আমাকে দেখতে পারে না।এরই মধ্যে পিওন এসে বলে গেল প্রিন্সিপাল আমাকে ডেকেছেন। তাই উনার রুমের দিকে গেলাম: আমি:may I come in,sir? প্রিন্সিপাল:ys,come in. আমি:স্যার,আমাকে নাকি ডেকেছিলেন? প্রিন্সিপাল:হুম আমি:কিসের জন্য? প্রিন্সিপাল:তুমি নাকি মিম কে distrub করো? আমি:জি না,তিনিই আমার সাথে আগে কথা বলতে আসেন প্রিন্সিপাল:ওকে,nxt যদি শুনি তুমি মিমকে distrub করেছো তাহলে তোমাকে t.c দিয়ে বের করে দিব আমি:ঠিক আছে sir প্রিন্সিপাল:এখন তুমি আসতে পার আমি:ওকে sir চলে আসলাম।আমার সাথে মিমও বের হলো বাহিরে এসে: মিম:,কেমন দিলাম? আমি:ভালো মিম:এরপর থেকে জেন আমার সামনে না দেখি আমি:চেস্টা করবো চলে আসলাম বারিতে।ফ্রেশ হয়ে খাবার খেতে গেলাম।তখন: বাবা:আমার গুনধর ছেলে,আর কত দিন এইভাবে চলবে? আমি:কি কত দিন চলবে? বাবা:এই খেত হয়ে থাকা বাবা:তুমি তো জানও আমার এরকম থাকতেই ভাল লাগে বাবা:তা তো জানি।কিন্তু সবাই কি বলে জানিস? আমার নাকি টাকা নাই ভাইয়া:হুম।ওকে একদম বাজে দেখা জায় আম্মু:ওটাই ভাল।কোন মেয় নজর দিবে না আমার ছেলের দিকে ভাবি:আম্মা,এখনকার ছেলেরা এরকম হয় নাকি,যে রকম আমার দেবর আমি:তোমরা কি শুরু করলে?১ মাস পর থেকে সব চেইঞ্জ করে ফেলব খাবার খেয়ে রুমে চলে আসলাম।আপনাদের হুম আমার পরিবার সম্পকে কিছু বলা হয় নাই। আমার পরিবারে মা-বাবা,ভাইয়া,ভাবি,ভাতিজা আর আমি।বাকিটা পরে জানতে পারবেন। তারপরের দিন কলেজে গেলাম।গেট দিয়ে ঢুকতে জাবো তখনি খেলাম ধাক্কা।তাকিয়ে দেখলাম মিম। তারপর:: আমি:সরি।আমি দেখিনি। মিম:তোর সাহস অনেক বেরে গেছে না? দারা তোকে আজ মজা দেখাব।(এই বলে ওর বাবাকে ফোন দিল)বাবা,একটা ছেলে আমাকে distrub করে,তুমি কলেজে অসো। ওকে আসছি মা :........ মিম:আচ্ছা,তারাতারি আসো। কিছুক্ষন পর মিমের বাবা আসলো।এসেই আমাকে একটা চর দিলো।তারপর: মিমের বাবা:এই ছেলে,তোর সাহস হলো কিকরে আমার মেয়কে distrub করার? আমি:আমি দুঃখিত খেয়াল করিনী sir। মিম:না বাবা,ওকে জেলে পুরে দাও আমাকে রোজ distrub করে। আমি:এবার কিন্তু বেশি হয়ে জাচ্ছে। মিম:কি বেশি হচ্ছে,হা? মিমের বাবা:আচ্ছা,এবারের মত কিছু বললাম না,nxt time কোন অভিজোগ আসলে জেলে পুরে দিব। আমি:ওকে sir চলে আসলাম সেখান থেকে।বাড়ি এসে ভাইয়ার রুমে গেলাম।তারপর: আমি:ভাইয়া ভাইয়া:হুম,বল আমি:কাল থেকে আমি গারি আর গার্ড নিয়া কলেজে জাবো ভাইয়া:ঠিক আছে।কিন্তু হঠাত এত পরিবর্তন।কাহিনি কি? ভাবি:দেখো কোন মেয়ের প্রেমে পরছে হয়তো আমি:আরে সেরকম কিছু না।(সব খুলে বললাম) ভাবি:আচ্ছা,সত্যি একটা কথা বলবা? আমি:আমি কি মিথ্যা কথা বলি? ভাবি:না তা না।বলছিলাম কি,তুমি কি মেয়টাকে ভালোবাস নাকি? আমি:সত্যি বলতে কি,হ্যাঁ বাসি ভাইয়া:তাহলে প্রপোজ কর আমি:আগে ওরে একটু টাইট দিয়া নেই তারপর বিয়ে করব। ভাবি:তারাতারি করে ফেলো আমি:হুম পিছন দিয়ে আব্বু-আম্মু এসে: আব্বু-আম্মু:ও এই বেপার।তা আমাদের বললে কি হতো শুনি? আমি:তোমরা? আম্মু:হ্যাঁ আমরা তা বউমাকে কবে আনবি? আমি:খুব তারাতারি আব্বু:best of luck আমি:tnx তারপর রুমে এসে শুয়ে পরলাম।সকালে শুন্দর করে রেডি হয়ে দুটো গারি নিয়ে বের হলাম। একটাতে আমি আর আরেকটাতে গার্ড। কলেজের কেম্পাসে গাড়ি পার্ক করে নামার সাথে সাথে সবাই হ্যাঁ করে তাকিয়ে আছে।সবাই হয়ত ভাবছে খেত টাইপের পুলা আবার এরকম stylish আর গাড়ি পেল কোই? একটু পর দেখি মিমও আমার দিকে হ্যাঁ কইরা তাকিয়ে আছে। ওর সামনে দিয়া জাওয়ার সময় আমার সাথে কথা বলতে চেয়েছে কিন্তু আমার গার্ড ওকে আসতে দেয়নি। আমি যা যা বলি তারা তাই করে, একটু ভাব নিলাম আর কি… ক্লাশে চলে গেলাম।সবার নজর আমার দিকে।মিম ক্লাশে ঢুকেই আমার সামনে এলো। তারপর: চলবে…⬇⬇ _বিঃদ্রঃ- এই পোষ্টটি কেমন লেগেছে ? কমেন্ট করতে ভুলবেন না।


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ৩০৮৩ জন


এ জাতীয় গল্প

→ কালো ছেলে...........
→ ফাযিল ছেলে vs রাগী মেয়ে
→ ছেলেদের কাঁদানো এতই সহজ নয়!
→ এক লোভী ছেলের গল্প
→ ছেলেদের জীবন বড়ই অদ্ভুত
→ আমার ছেলেবেলা
→ "বোকা ছেলে"
→ ছেলেরা কত স্বাধীন!
→ রাকিব নামে অভাগা ছেলেটি?
→ বোকা সেই ছেলেটা

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...