Deprecated: mysql_connect(): The mysql extension is deprecated and will be removed in the future: use mysqli or PDO instead in /var/sites/g/golperjhuri.com/public_html/gj-con.php on line 6
ঈশ্বরের সৃষ্টি

সুপ্রিয় গল্পের ঝুরিয়ান ... গল্পেরঝুড়ি একটি অনলাইন ভিত্তিক গল্প পড়ার সাইট হলেও বাস্তবে বই কিনে পড়ার ব্যাপারে উৎসাহ প্রদান করে... স্বয়ং জিজের স্বপ্নদ্রষ্টার নিজের বড় একটি লাইব্রেরী আছে... তাই জিজেতে নতুন ক্যাটেগরি খোলা হয়েছে বুক রিভিউ নামে ... এখানে আপনারা নতুন বই এর রিভিও দিয়ে বই প্রেমিক দের বই কিনতে উৎসাহিত করুন... ধন্যবাদ...

সুপ্রিয় গল্পের ঝুরিয়ান গন আপনারা শুধু মাত্র কৌতুক এবং হাদিস পোস্ট করবেন না.. যদি হাদিস /কৌতুক ঘটনা মুলক হয় এবং কৌতুক টি মজার গল্প শ্রেণি তে পরে তবে সমস্যা নেই অন্যথা পোস্ট টি পাবলিশ করা হবে না....আর ভিন্ন খবর শ্রেনিতে শুধুমাত্র সাধারন জ্ঞান গ্রহণযোগ্য নয়.. ভিন্ন ধরনের একটি বিশেষ খবর গ্রহণযোগ্যতা পাবে

ঈশ্বরের সৃষ্টি

"ছোটদের গল্প" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান Y. A. Nafis (০ পয়েন্ট)



ঈশ্বর মানুষ সৃষ্টি করেন তারপর তারমধ্যে আত্মা দিয়ে প্রাণ সঞ্চার করেন। এভাবেই চলছিল। হঠাৎ একদিন তিনি মানুষ সৃষ্টি করতে গিয়ে দেখলেন মানুষের চেয়ে আত্মা কয়েকটা কম। কিন্তু মানুষ তো সৃষ্টি করতেই হবে| কি আর করার তিনি যম রাজ কে আদেশ দিলেন| যেভাবেই হোক কয়েকটা আত্মা পৃথিবী থেকে নিয়ে আস। যম রাজ পৃথিবীতে এসে দেখলেন মাঠে এক যুবক বসে আছে| যমরাজ যুবকের কাছে এসে নিজের পরিচয় দিলেন এবং তাঁকে সেচ্ছায় দেহত্যাগ করার অনুরোধ করলেন। যমরাজ এটাও বললেন এখন যদি আপনি ঈশ্বরের কাজের জন্য দেহ ত্যাগ করেন তাহলে আপনার নিশ্চয়ই স্বর্গ বাস হবে। এমনিতেই যুবক মানুষ রক্তের জোর বেশী। সে রেগে গিয়ে বলল ব্যাটা ফাইজলামি পাইছ। তুমি যম রাজ ঈশ্বর তোমাকে পাঠায়েছেন। চাপা মারার যায়গা পাওনা। তোমার এত স্বর্গে যাওয়ার শখ থাকলে তুমি নিজে মরে নিজের আত্মা দান কর। নিজে মরতে না পারলে আমাকে বল আমি তোমাকে সাহায্য করছি। যম রাজ দেখলেন অবস্থা বেগতিক। এখান থেকে সরে পড়াই ভাল। তারপর যম রাজ দেখলেন বট গাছের ছায়ায় এক বৃদ্ধ বসে আছেন। যম রাজ ভাবলেন লোকটার বয়স অনেক। আর ক দিনই বা আর বাঁচবে গাঁয়েও তেমন জোর নেই একে প্রস্তাব দেয়া নিরাপদ। যমরাজ বৃদ্ধের সাথে অনেক কথা বলে শেষে এই প্রস্তাব দিলেন। কিন্তু এবারও কপাল খারাপ যম রাজের প্রস্তাব শুনে বৃদ্ধ তেলে বেগুনে জ্বলে উঠল। এত বড় কথা। আমাকে বলে মরতে!!! সে তার ছেলে নাতি সবাই এক সাথে ডাকল। এই সালা টাকে ধর। ওর কত বড় সাহস বলে কিনা আমাকে মরতে আবার স্বর্গের লোভ দেখায়। যম রাজ এবার ও কোন মতে পালিয়ে বাঁচল। বুঝতে পারল মানুষ্য জাতী নিজেকে খুবই ভাল বাসে এরা সহজে মরতে চায় না। এদিকে রাত হয়ে আসছে একটা আত্মা ও পাওয়া গেল না। যম রাজ চিন্তিত হয়ে পড়লেন। হাঁটতে হাঁটতে তিনি একটা বনের ধারে চলে এসেছিলেন। হ


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ৩৩৩ জন


এ জাতীয় গল্প

→ স্রষ্টাকে কে সৃষ্টি করল? বিভ্রান্তি নাকি সত্যি??
→ পথ পথিকের সৃষ্টি করে না, পথিকই পথের সৃষ্টি করে ।
→ সৃষ্টিকর্তা আসলেই কি আছে??মানুষ কাজ করলে তবেই রিজিক পায় এতে সৃষ্টিকর্তার হাত কি?হাত থাকলে তিনি কেন কাজ করা ছাড়াই রিজিক দেন না??
→ সৃষ্টিকর্ম
→ সৃষ্টিকর্তা মৃত্যুের পর কিভাবে মানুষকে পুনরায় জীবিত করবেন?
→ ঈশ্বরের সৃষ্টি
→ সৃষ্টিকর্তার বিশ্বাস
→ ★ সৃষ্টির মহব্বত বনাম মুসিবত,বিপর্যয় ★ পর্ব- ২
→ ★সৃষ্টির মহব্বত বনাম মুসিবত, বিপর্যয়★ পর্ব --১

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...