গল্পেরঝুড়ির এ্যাপ ডাউনলোড করুন - get google app
গল্পেরঝুড়ি ফানবক্স ! এখন গল্পের সাথেও মজাও হবে! কুইজ খেলুন , অংক কষুন , বাড়িয়ে নিন আপনার দক্ষতা জিতে নিন রেওয়ার্ড !

সুপ্রিয় পাঠকগন আপনাদের অনেকে বিভিন্ন কিছু জানতে চেয়ে ম্যাসেজ দিয়েছেন কিন্তু আমরা আপনাদের ম্যাসেজের রিপ্লাই দিতে পারিনাই তার কারন আপনারা নিবন্ধন না করে ম্যাসেজ দিয়েছেন ... তাই আপনাদের কাছে অনুরোধ কিছু বলার থাকলে প্রথমে নিবন্ধন করুন তারপর লগইন করে ম্যাসেজ দিন যাতে রিপ্লাই দেওয়া সম্ভব হয় ...

সুপ্রিয় গল্পেরঝুরিয়ান... জিজেতে আজে বাজে কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন ... অন্যথায় আপনার আইডি বা কমেন্ট ব্লক করা হবে... আর গল্প দেওয়ার ক্ষেত্রে গল্প দেওয়ার নিয়ম মেনে চলুন ... সার্বিকভাবে জিজের নীতিমালা মেনে চলার চেস্টা করুন ...

গা শিহরিত এক ভয়ঙ্কর রাত -১

"ভৌতিক গল্প " বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান mim (০ পয়েন্ট)



★লেখকঃ মিম★ রাজুর নানা বেড়াতে এসেছে। আমরা সবাই তো খুব খুশি। নানা খুব ভালো গল্প করতে পারেন। উনি বেড়াতে এলে আমরা কেউ উনার পেছন ছাড়ি না। সেদিন রাতে নানা একটা গল্প বলেছিলেন। কিন্তু এটা এক বারে নিছক গল্প না তার জীবনে ঘটা একটা ঘটনা। উনি যুবক বয়সে ছুলেন খুব সাহসী আর শক্তিমান। তখন গ্রামে গ্রামে কুস্তি খেলা হতো। উনি ঐ কুস্তি খেলার একজন নামকরা পাহলোয়ান ছিলেন। তো উনারা কতজন বন্ধু মিলে রোজ বিলে যেতেন মাছ ধরতে। রাতদুপুরে পরিবেশ নিঝুম থাকায় মাছ ধরতে বেশ সুবিধা হত। উনার যেতেন ৫ জন। নানা আর উনার বন্ধু রহমান,শফি,হাশেম ও জব্বার। তা সেদিন শফির জ্বর হয়েছিল বলে যেতে পারলো না। হাশেম গেছিল শ্বশুর বাড়ি। আর জব্বার কয়দিনের জন্য গিছিল ব্যাবসার কাজে। তো সেদিন শুধু নানা আর রহমানের যাবার কথা রহমানের কাজ ছিল নানাকে ডেকে নিয়ে যাওয়া। ঠিক রাত ৪ টার দিকে। পরে রাতে ডাক শোনা গেল বাইরে থেকে। ১ ডাকেই নানার ঘুম ভেঙে গেল। নানা আর অপেক্ষা না করে বাইরে এল। সত্যিই রহমান চলে এসেছে। তখন কিন্তু এখনকার মত এমন ঘড়ি টড়ি ছিল না যে সময় দেখে কাজ করবে। একটা অনুমানের উপর কাজ করত। নানা বলল,কিরে রহমান একটু বেশি আগে যাওয়া হচ্ছে নাতো? রহমান শুধু বলল,না। নানা আর কথা বাড়ালো না। চলল রহমানের সাথে। যেতে যেতে নানা সিগারেট ধরাল। এতখন রহমান নানর আশ পাশ দিয়েই চলছিল। কিন্তু এবার রহমানকে আর দেখা গেল না। নানা রহমান রহমান বলে ডাকতে লাগল। তখন বেশ খানিকটা সামনে থেকে রহমান বলল,এই তো আমি এখানেই আছি। নানা একটু আগেইতো ওকে পাশে দেখেছিল। এইটুকুর মধ্যে অতদূরে চলে গেল কি করে?? নানা ভাবছিল আর জোরে জোরে হাটছিল। কিন্তু আজব ব্যাপারতো কোনোমতেই রহমানকে ধরা গেল না। সে ওই আগের মতই দূরে রয়েছে। নানার সিগারেটটা এবার শেষ হয়ে গেল। আর নানা সেটা ফেলে সামনে এগিয়ে ররহমানের কাছে যাবে তখনই দেখে রহমান নানার পাশেই হাটছে।


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ৬৮২ জন


এ জাতীয় গল্প

→ ~ইসলাম কেন পুরুষদের একাধিক স্ত্রী গ্রহণের অনুমতি দেয়? কিছু ভুল,কিছু বিভ্রান্তের সমাধানের প্রচেষ্টা!
→ "এখনও আমি অপেক্ষা করছি তোমার জন্য!!!" পর্ব-১
→ এক অন্যরকম অ্যাডভেঞ্চারঃ ফেলুদা অমনিবাস
→ শ্রদ্ধা-1
→ ~দীঘির জলে কার ছায়া গো-হুমায়ূন আহমেদ(বুক রিভিউ)(আমার সবচেয়ে প্রিয় আরও একটা বই)।
→ ~অমুসলিমদের জন্য মক্কা-মদিনায় প্রবেশ নিষিদ্ধ কেন? এতে কী বিশ্ব ভ্রাতৃত্ব হুমকির মুখে?
→ একটি দামি উপহার
→ একজন পিতার আর্তনাদ
→ আজমির দরগা আক্রমন
→ পুরানো ঈদের রাতগুলো, স্মৃতির পাতায় রয়েই গেল।

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...