গল্পেরঝুড়ির এ্যাপ ডাউনলোড করুন - get google app
গল্পেরঝুড়ি ফানবক্স ! এখন গল্পের সাথেও মজাও হবে! কুইজ খেলুন , অংক কষুন , বাড়িয়ে নিন আপনার দক্ষতা জিতে নিন রেওয়ার্ড !

যারা একটি গল্পে অযাচিত কমেন্ট করছেন তারা অবস্যাই আমাদের দৃষ্টিতে আছেন ... পয়েন্ট বাড়াতে শুধু শুধু কমেন্ট করবেন না ... অনেকে হয়ত ভুলে গিয়েছেন পয়েন্ট এর পাশাপাশি ডিমেরিট পয়েন্ট নামক একটা বিষয় ও রয়েছে ... একটি ডিমেরিট পয়েন্ট হলে তার পয়েন্টের ২৫% নষ্ট হয়ে যাবে এবং তারপর ৫০% ৭৫% কেটে নেওয়া হবে... তাই শুধু শুধু একই কমেন্ট বারবার করবেন না... ধন্যবাদ...

সুপ্রিয় গল্পেরঝুরিয়ান... জিজেতে আজে বাজে কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন ... অন্যথায় আপনার আইডি বা কমেন্ট ব্লক করা হবে... আর গল্প দেওয়ার ক্ষেত্রে গল্প দেওয়ার নিয়ম মেনে চলুন ... সার্বিকভাবে জিজের নীতিমালা মেনে চলার চেস্টা করুন ...

না বলতে পারা ভালবাসা-১

"রোম্যান্টিক" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান mim (০ পয়েন্ট)



★লেখকঃ মিম★ আবীরঃ ও,,, শিট আজও বলতে পারলাম না। কেনো যে এমনটা হয়?? যার উদ্দেশ্যে আবীর এই কথাগুলো বলল ওর নাম মিতু। আমাদের মিনার খালাতো বোন।মিতুর বাবা একজন পদার্থ বিজ্ঞানী। আর ছেলেটা হচ্ছে মিতুর সবথেকে বেস্ট ফ্রেন্ড। ওরা ছোটবেলার বন্ধু ক্লাস ফোর থেকে। শুধু বন্ধুই না। তবে আর যে কি সেটা এখন বলা যাবে না। ছোট থেকেই ওরা একসাথে পড়ত। আবীর পড়াশোনায় একটু কমা ছিল। মিতু পড়াশুনায় খুব ভালো। ক্লাসের ফার্স্ট গার্ল।আবীর কিছু না বুঝলে সোজা মিতুর কাছে। মিতু ওকে যতটা সম্ভব বোঝাতো। কুিন্তু দুষ্টু আবীরের মাথায় ঘুরত দুষ্টু বুদ্ধি। ওর মিতুকে রাগাতে খুব ভালো লাগে। তাই বার বার বোঝানোর পরেও বুঝে গিয়েও বলত বুঝি নি। আর কোথায় যাবে। রেগে গিয়ে মিতুও দিত গালি,বদমাইশ, শয়তান,ফাজলামো করিস?ইত্যাদি ইত্যাদি। কিন্তু এসব শুনে আবীরের খুব হাসি পায় তবে ওর সামনে হাসলে তো আর রক্ষা নেই। বেচারা মনে মনেই হাসে। সেই ছোট থেকেই ওদের দিন এভাবে চলছে। তবে মিতু রেগে গিয়ে হাজার বকা দেওয়ার পর ও যখন আবীর একটা কথাও বলে না তখন আবীরের ঐ পেঁচার মত করে থাকা মুখটা দেখে মিতুর সত্যিই মায়া হয়। ও সরি বলে নেয়। আবার প্রতিদিন স্কুল ছুটির পর দুজন দুজনকে জিজ্ঞাসা করে,কাল স্কুলে আসবি তো? একজনের উত্তরও যদি "না" হয় তবে বাকিজন আর স্কুলে আসে না পরের দিন। বাড়ি তেতো যেকোনো সমস্যা দেখিয়ে বুঝিয়ে দেয়। ছোটবেলা থেকে ওরা দুজন আবার খুব মারামারি করত। আর এই নালিশ চলে যেত টিচারদের মাধ্যমে সোজা বাড়ি। তাই ওদের দুবাড়ির পক্ষ থেকেই দুজনের মিশতে মানা। কিন্তু কে শোনে কার কথা? ওরা যতই মারামারি করুক ওদের কথা বলা কে আটকায়।


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ৩৪০ জন


এ জাতীয় গল্প

→ হায়রে মানুষ, তাদের কি ছিলনা কোনো হুশ!
→ ~ভূত নামানো(গল্পটি বলেছেন ড.মুহাম্মদ জাফর ইকবাল)।
→ অভিশপ্ত আয়না পর্ব৪:-
→ ✳নিজেকে দোষ দিও না✳
→ অভিশপ্ত আয়না পর্ব৩:-
→ সৌন্দর্যের আলাদা করে কোনো রঙ হয় না
→ নিজেকে জানা
→ অভিশপ্ত আয়না পর্ব২:-
→ ~অমুসলিমদের জন্য মক্কা-মদিনায় প্রবেশ নিষিদ্ধ কেন? এতে কী বিশ্ব ভ্রাতৃত্ব হুমকির মুখে?
→ ❣না বলা ভালোবাসা ❣পাঠ ২

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...