গল্পেরঝুড়ির এ্যাপ ডাউনলোড করুন - get google app
গল্পেরঝুড়ি ফানবক্স ! এখন গল্পের সাথেও মজাও হবে! কুইজ খেলুন , অংক কষুন , বাড়িয়ে নিন আপনার দক্ষতা জিতে নিন রেওয়ার্ড !

সুপ্রিয় পাঠকগন আপনাদের অনেকে বিভিন্ন কিছু জানতে চেয়ে ম্যাসেজ দিয়েছেন কিন্তু আমরা আপনাদের ম্যাসেজের রিপ্লাই দিতে পারিনাই তার কারন আপনারা নিবন্ধন না করে ম্যাসেজ দিয়েছেন ... তাই আপনাদের কাছে অনুরোধ কিছু বলার থাকলে প্রথমে নিবন্ধন করুন তারপর লগইন করে ম্যাসেজ দিন যাতে রিপ্লাই দেওয়া সম্ভব হয় ...

সুপ্রিয় গল্পেরঝুরিয়ান... জিজেতে আজে বাজে কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন ... অন্যথায় আপনার আইডি বা কমেন্ট ব্লক করা হবে... আর গল্প দেওয়ার ক্ষেত্রে গল্প দেওয়ার নিয়ম মেনে চলুন ... সার্বিকভাবে জিজের নীতিমালা মেনে চলার চেস্টা করুন ...

অভিশপ্ত খুলি ২য় পর্ব

"ভৌতিক গল্প " বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান জাকারিয়া আহমেদ (০ পয়েন্ট)



লেখাটা বুঝে উঠার আগেই ঘুম ভেঙ্গে গেল। সকাল হয়ে গেছে। প্রতিদিনের মতো আজও কাজে ব্যাস্ত। তবে কেমন যেন এক অন্যরকম অনূভূতি।কিছুই ভালো লাগছে না শুধু গত রাতের কথা আর গত সন্ধার কথা মনে পড়ছে ওর।বনের ওই জায়গাটা কেমন। বৃওাকার ভাবে দাড়িয়ে থাকা গাছ,সেই জায়গার মাটিগুলো কেমন লাল। এইসব নিয়ে সারাদিন চিন্তা করতে থাকল ও। সবকিছুর মধ্যে কি একটা মিল আছে কিন্তু মিলটা ঠিক কোথায় তা বুঝতে পরছে না ও।দুপুর হয়ে গেছে।সাধারনত দুপুর বেলা ও বই নিয়ে ব্যাস্ত থাকে।আজও বই পড়ছে। কিন্তু বই পড়তে কেমন যেন মন নেই ওর। বই বন্ধ করে কালকের ওই জায়গায় চলে গেল ও।বনের ভিতর ঢুকার পর একটু দূরে রয়েছে জায়গাটা।গাছগুলোর কাছে গেল ও।সেই রক্তিম মাটি।সামনে পা বাড়াবে এমন সময় চারদিকে কেমন যেন খসখসে শব্দ হতে লাগল। ওভাবলো হয়তো কোনো প্রণি হাটছে তাই এমন শব্দ হচ্ছে।কয়েক মুহুর্তের মধ্যে সবকিছু নিরব। ও ওই বৃওাকার গাছগুলোর মধ্যে প্রবেশ করল।ঠিক মাঝখানে গিয়ে দাড়াল।পায়ের নিচের মাটিগুলো আস্তে আস্তে সরাতে লাগল। কিছুক্ষন খুড়ার পর মাটির নিচে শক্ত কি একটা অনূভুব করল।আরো কিছু সময় খুড়ার পর একটা বাক্স পেল। যেটা গত রাতে সে দেখেছিল। অবাক করা ব্যাপার হল গত রাতে ও যেমন বাক্স দেখেছিল ঠিক তেমনই বাক্সটা।এবার ও বাক্সের উপরের অংশের দিকে লক্ষ্য করল।উপরে কিছু লেখা আছে তবে তা অস্পষ্ট।ও গুপ্তধন ভেবে বাক্সটা হাতে নিতে যাবে কিন্তু ওটা অনেক ভারী।মনে মনে খুশি হয়েই ওটা নিয়ে বাড়ি চলে আসল।বক্সটা নিয়ে রাখল ওর পড়ার ঘরে। এখন ওটা খুলার পালা। আস্তে আস্তে খুলতে লাগল। তবুও ওটা খুলছে না। এবার একটু জোর করেই খুলল।বক্সটার উপরের দিক একটু ফাক করতেই চারদিক থেকে ঠান্ডা হাওয়া এসে ওটার মধ্যে ডুকল।ও এসব না ভেবে বাক্সটা খুলল। কিন্তু একি এই বাক্সের মধ্যে কোনো গুপ্তধন নেই।তবে সেখানে একটা লাল কাপড়ে মোড়ানো একটা মাথার খুলি রয়েছে।ও সেটা ভালো করে দেখতে লাগল।কতক্ষন দেখেছে মনে নেই। হটাৎ চারদিকে তাকিয়ে দেখে সন্ধ্যা হয়ে গেছে।খুলিটা বক্সের ভেতর রেখে ঘরের এক কোণে রেখে দিল।ওর রাগ হবার কথা কিন্তু রাগ হলো না। ওর এসব জিনিষ নিয়ে ভাবতে ভালো লাগে। রাত্রে ঘুমানোর সময় ওটা নিয়ে ভাবতে থাকলো। বইয়ের লেখার সাথে মিলিয়ে দেখবে।এসব ভাবতে ভাবতে কখন ঘুমিয়ে পড়ছে মনে নেই। হটাৎ মাঝ রাতে ওর কি একটা খসখস শব্দে ঘুম ভেঙে গেল।সে আরো খেয়াল করল কয়েকজন মানুষ একসাথে কথা বলছে,সেখানে কয়েকটা শিশুর কণ্ঠস্বর, সাথে কয়েকজন বৃদ্ধ লোকের গলার আওয়াজ। মোবাইলের লাইট জ্বালালো এবং চারদিকে তাকিয়ে দেখতে লাগল।হটাৎ তার চোখ মেঝের দিকে পড়ল এবং রিতিমতো একদম বিষ্মিত হয়ে গেল।মেঝের চারদিকে রক্তে ভরে গেছে।রক্ত পাশের রুম থেকে এই রুমে চলে আসছে যেন সেখানে কোনো জীবন্ত প্রানী জবাই করা হচ্ছে এবং রক্ত এদিকে বয়ে যাচ্ছে।ওর হালকা ভয় লাগছে তবুও ও উটে গেল আর খুজতে লাগল রক্তের এই ধারার উৎপত্তি কোথায়...... (চলবে)


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ২২৯ জন


এ জাতীয় গল্প

→ অবনীল(পর্ব-৭)
→ "এখনও আমি অপেক্ষা করছি তোমার জন্য!!!" পর্ব-১
→ অ্যামাজনে কয়েকদিন (পর্ব ৬)
→ অ্যামাজনে কয়েকদিন (পর্ব ৬)
→ অভিশপ্ত আয়না পর্ব৪:-
→ অভিশপ্ত আয়না পর্ব৩:-
→ "আনিকা তুমি এমন কেন?"[২য় তথা শেষ পর্ব]
→ অভিশপ্ত আয়না পর্ব২:-
→ জিজেসদের নিয়ে সারার মৃত্যুর রহস্য উদঘাটন[দ্বিতীয় পর্ব]
→ ইউনিকর্ন(পর্ব_২)

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...