গল্পেরঝুড়ির এ্যাপ ডাউনলোড করুন - get google app
গল্পেরঝুড়ি ফানবক্স ! এখন গল্পের সাথেও মজাও হবে! কুইজ খেলুন , অংক কষুন , বাড়িয়ে নিন আপনার দক্ষতা জিতে নিন রেওয়ার্ড !

যারা একটি গল্পে অযাচিত কমেন্ট করছেন তারা অবস্যাই আমাদের দৃষ্টিতে আছেন ... পয়েন্ট বাড়াতে শুধু শুধু কমেন্ট করবেন না ... অনেকে হয়ত ভুলে গিয়েছেন পয়েন্ট এর পাশাপাশি ডিমেরিট পয়েন্ট নামক একটা বিষয় ও রয়েছে ... একটি ডিমেরিট পয়েন্ট হলে তার পয়েন্টের ২৫% নষ্ট হয়ে যাবে এবং তারপর ৫০% ৭৫% কেটে নেওয়া হবে... তাই শুধু শুধু একই কমেন্ট বারবার করবেন না... ধন্যবাদ...

সুপ্রিয় গল্পেরঝুরিয়ান... জিজেতে আজে বাজে কমেন্ট করা থেকে বিরত থাকুন ... অন্যথায় আপনার আইডি বা কমেন্ট ব্লক করা হবে... আর গল্প দেওয়ার ক্ষেত্রে গল্প দেওয়ার নিয়ম মেনে চলুন ... সার্বিকভাবে জিজের নীতিমালা মেনে চলার চেস্টা করুন ...

তিন গোয়েন্দা - বিদায় মুসা! (পার্ট ১)

"গোয়েন্দা কাহিনি" বিভাগে গল্পটি দিয়েছেন গল্পের ঝুরিয়ান রিয়েন সরকার (৩৩ পয়েন্ট)



বাঁ-পায়ের স্কেট-এর ফিতে বেঁধে নিয়ে মুখ তুলে তাকাল মুসা।স্কেটিং পার্টির জন্যে আজকের দিনটা সত্যিই চমৎকার।বরফে প্রতিফলিত সূর্যের আলো এতই উজ্জল যে,চোখ কুঁচকাতে হলো ওকে।'জলদি করো!'তাগাদা দিল কিশোর।শোঁ করে বেরিয়ে গেল ও মুসার পাশ দিয়ে।নীল-লাল স্ট্রাইপ দেয়া উলের স্কার্ফ গলায় বেঁধেছে কিশোর।ওটা ক'দিন আগে বুনে দিয়েছে ওকে জিনা।জন্মদিনের উপহার।স্কার্ফের পিছনটা বাতাসে উড়তে দেখল মুসা।চিৎকার করে বলল ও,'যাও তুমি।আমি শুরু করলে রবিন আর তোমাকে পেছনে ফেলতে দুই সেকেন্ড!'দেড়ঘন্টা আগে কিশোরের বাসায় ফোন করেছিল রবিন,বলেছিল,দিনটা দারুণ,যাবে নাকি ওরা রকি বিচ মেমোরিয়াল পার্কের দীঘিতে স্কেট করতে।সঙ্গে সঙ্গে রাজি হয়ে গেছে মুসা-কিশোর।রাশেদ চাচা পুরোনো মাল কিনতে রোভারকে নিয়ে গেছেন সেই স্যান-ফ্রান্সিসকো,ফিরবেন তিনদিন পর,ফলে স্যালভেজ ইয়ার্ডে তেমন কোনো কাজ নেই।রবিন আসার পর রওনা হয়েছে ওরা তোবড়ানো ফোক্সওয়াগেনে।একটু আগে বিকট আওয়াজে কয়েকটা মিসফায়ার করে চারপাশের সবাইকে চমকে দিয়েছে মুসা,তারপর দীঘির পাড়ে থামিয়েছে ওদের প্রাচীন গাড়ি। পার্কে পৌছে তিন গোয়েন্দা দেখেছে,শুধু ওরাই আসেনি,আজকের এই রোদ ঝলমলে দিনে রীতিমত ভিড় জমে গেছে পুরু বরফে ঢাকা দীঘির উপর।স্কেটের ফিতে বাঁধতে বাঁধতে রকি বিচ হাই-স্কুলের পরিচিত অন্তত দশটা ছেলেকে দেখেছে,মুসা।কেউ পড়ে ওর চেয়ে উপরের ক্লাসে,কেউ বা নীচে।গুনগুন করে গান গাইতে গাইতে ডান পায়ের স্কেটের ফিতেয় শেষ গিঁঠ দিল মুসা।গিঁঠ দেয়া মাত্র শেষ করেছে,এমন সময় কে যেন এক ঝটকায় ফারিহার উপহার দেয়া ফ্লিসের ক্যাপটা কেড়ে নিল ওর মাথা থেকে।'আরিহ!'লাফ দিয়ে উঠে দাড়াল বিস্মিত মুসা।দু'ফুট দূরে থেমেছে ক্যাপ ছিনতাইকারী;চোখে স্পষ্ট চ্যালেন্জ,সেই সাথে ঠোঁটে দুষ্টুমির হাসি।তার বাড়ানো হাতে ঝুলছে মুসার ক্যাপ।হাত বাড়িয়ে ক্যাপটা ধরতে চেষ্টা করল মুসা,কিন্তু স্কেট করে ওর আওতার বাইরে পিছিয়ে গেল ছিনতাইকারী।'দাড়াও,রবিন!দেখাচ্ছি!'স্কেটিং শুরু করে হাসিমুখে হুঙ্কার ছাড়ল মুসা:'গররর!ঘুরেই বরফের উপর দিয়ে ক্যাপ হাতে ছুটল রবিন।দেরি না করে ওর পিছু নিল মুসা।আস্তে আস্তে কমল দু'জনের দূরত্ব।আর চারফুট...তিনফুট...রবিনের কাছ থেকে ক্যাপ কেড়ে নিতে হাত বাড়াল মুসা।আর ঠিক তখনই পাশ থেকে আড়াআড়ি ভাবে ওকে পার হতে গেল উজ্জল পার্কা পরা একটা ছেলে।(চলবে)


এডিট ডিলিট প্রিন্ট করুন  অভিযোগ করুন     

গল্পটি পড়েছেন ৭৮২ জন


এ জাতীয় গল্প

→ জিজের ছেলেদের ক্রিকেট ম্যাচ -2
→ Never Stop Learning-Ayman Sadiq
→ কলম্বাসের আমেরিকা আবিষ্কারের কথা।পর্ব-2
→ নাইন-ইলেভেন
→ ~দ্য আলকেমিস্ট-পাওলো কোয়েলহো(বুক রিভিউ)।
→ জিজের পরিচিতরা যে কারণে প্রিয় (পর্ব-২)
→ কলম্বাসের আমেরিকা আবিষ্কারের কথা। পর্ব-1
→ জিজের পরিচিতরা যে কারণে প্রিয় (পর্ব-১)
→ অবনীল(পর্ব-৮)
→ অভিশপ্ত আয়না পর্র৬(শেষ পর্ব):-

গল্পটির রেটিং দিনঃ-

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করুন

গল্পটির বিষয়ে মন্তব্য করতে আপনার একাউন্টে প্রবেশ করুন ... ধন্যবাদ...